প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

১৬০০ কোটি টাকার বন্ড ইস্যু করবে পূবালী ও প্রিমিয়ার ব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক খাতের কোম্পানি পূবালী ব্যাংক লিমিটেড ও প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড পৃথকভাবে মোট ১ হাজার ৬০০ কোটি টাকার বন্ড ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর মধ্যে পূবালী ব্যাংক ১ হাজার কোটি টাকার সাবঅর্ডিনেটেড বন্ড এবং প্রিমিয়ার ব্যাংক ৬০০ কোটি টাকার নন-কনভার্টিবল সাবঅর্ডিনেটেড বন্ড ইস্যু করে অর্থ সংগ্রহ করবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যাসেল-৩-এর অধীনে টায়ার-২ মূলধন শক্তিশালী করতে ১ হাজার কোটি টাকার সাবঅর্ডিনেটেড বন্ড ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পূবালী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ। নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন ও অন্যান্য শর্ত পূরণ করে এ বন্ড ইস্যু করবে ব্যাংকটি। অন্যদিকে সাত বছর মেয়াদি ৬০০ কোটি টাকার নন-কনভার্টেবল, আনসিকিউরড, ফুললি রিডিম্বেল, ফ্লোটিং রেট সাবঅর্ডিনেটেড বন্ড ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রিমিয়ার ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ। ব্যাসেল-৩-এর অধীনে টায়ার-২ মূলধন শক্তিশালী করতে প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে পঞ্চম সাবঅর্ডিনেটেড বন্ডটি ইস্যু করতে চায় প্রিমিয়ার ব্যাংক। নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন ও অন্যান্য শর্ত পূরণ করে এ বন্ড ইস্যু করবে ব্যাংকটি।

এদিকে সম্প্রতি চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ, ২০২২) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশের পাশাপাশি ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে লভ্যাংশ ঘোষণা দিয়েছে দুটি ব্যাংক।

পূবালী ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে এক টাকা ১৯ পয়সা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৯৮ পয়সা। অর্থাৎ শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ২১ পয়সা। ২০২২ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৪০ টাকা। এছাড়া প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৯ পয়সা। সর্বশেষ কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগকারীদের জন্য সাড়ে ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪ টাকা ২৩ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর, ২০২১ শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) ছিল ৩৮ টাকা ৬৯ পয়সা এবং আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে তিন টাকা ২৮ পয়সা।

‘এ’ ক্যাটেগরির ব্যাংক খাতের এ কোম্পানিটি ১৯৮৪ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। প্রতিষ্ঠানটির দুই হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন এক হাজার ২৮ কোটি ২৯ লাখ টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ দুই হাজার ৮৪১ কোটি ১৮ লাখ টাকা। এছাড়া বর্তমানে কোম্পানিটির মোট ১০২ কোটি ৮২ লাখ ৯৪ হাজার ২১৯ শেয়ার রয়েছে।

প্রিমিয়ার ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৫ পয়সা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৫৬ পয়সা। অর্থাৎ শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৯ পয়সা। ২০২২ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২২ টাকা ১২ পয়সা। এছাড়া প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৩ পয়সা। সর্বশেষ কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগকারীদের জন্য সাড়ে ১২ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ১৫ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর, ২০২১ শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) ছিল ২১ টাকা ৪৪ পয়সা এবং আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ২ টাকা ৪৯ পয়সা (ঘাটতি)।