বিশ্ব বাণিজ্য

২০২০ সালে তেল সরবরাহে ঘাটতি থাকবে: ওপেক

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আগামী বছর বিশ্বজুড়ে জ্বালানি তেলের সরবরাহে সামান্য ঘাটতি থাকতে পারে বলে পূর্বাভাস করেছে জ্বালানি তেল উৎপাদনকারী দেশগুলোর সংস্থা ওপেক। এর কারণ হিসেবে সৌদি আরবের নিয়ন্ত্রণমূলক নীতির কথা উল্লেখ করা হয়েছে। যদিও এর আগে ওপেক ও অন্যান্য উত্তোলক দেশগুলোর সঙ্গে করা সর্বশেষ চুক্তি কার্যকর হয়েছে। খবর: রয়টার্স।

মাসিক প্রতিবেদনে ওপেক জানিয়েছে, আগামী বছর প্রতিদিন গড়ে দুই কোটি ৯৫ লাখ ৮০ হাজার ব্যারেল তেলের প্রয়োজন হবে। এ গড়ের তুলনায় গত নভেম্বরে কম পরিমাণ তেল উত্তোলন করেছে ওপেক, যদিও আগের মাসেই প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত তেল উত্তোলন করা হয়েছিল।

সব মিলিয়ে ওপেক ও রাশিয়াসহ অন্যান্য উত্তোলনকারী দেশগুলো যে পদক্ষেপ নিয়েছে, তাতে অনুকূল পরিবেশ বিরাজ করবে বলে মনে করা হচ্ছে। আগামী বছরের জন্য অর্থনৈতিক ও জ্বালানি তেলের চাহিদা প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাসও অপরিবর্তিত রেখেছে ওপেক। পাশাপাশি লক্ষ্যমাত্রা পূরণের ব্যাপারেও আশাবাদী সংস্থাটি।

ওপেকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছরজুড়ে চলমান উৎপাদন ব্যবস্থা আগামী বছর গিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারে। সংস্থাটির এ রিপোর্ট প্রকাশের পর প্রতি ব্যারেল জ্বালানি তেল বিক্রি হয়েছে ৬৪ ডলারে, যা ওপেকের কর্মকর্তাদের প্রত্যাশার তুলনায় কিছু কম। গত ১ জানুয়ারি ওপেক ও অন্যান্য তেল উত্তোলনকারী দেশগুলো চুক্তি করে, তারা প্রতিদিন ১২ লাখ ব্যারেল তেল কম উত্তোলন করবে।

এছাড়া গত সপ্তাহে আরেকটি বৈঠকে দৈনিক পাঁচ লাখ ব্যারেল তেল কম উত্তোলন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। আগামী ১ জানুয়ারি থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হওয়ার কথা রয়েছে। ওপেকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, নতুন চুক্তি কার্যকর হওয়ার আগেই তেল উৎপাদনের পরিমাণ কমতে শুরু করেছে। নভেম্বরে প্রতিদিন জ্বালানি তেল সরবরাহ এখন এক লাখ ৯৩ হাজার ব্যারেল কমে দিনে দুই কোটি ৯৫ লাখ ৫০ হাজার ব্যারেলে দাঁড়িয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..