প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে: প্রধানমন্ত্রী

শেয়ার বিজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করাই এখন মূল লক্ষ্য।’

রোববার (২৮ নভেম্বর) একাদশ জাতীয় সংসদের পঞ্চদশ অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৮ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে আওয়ামী লীগ ঘোষিত রূপকল্প-২০২১ এবং এর আলোকে আমরা যে পরিকল্পনাগুলো নিয়েছি, সে সময় অনেকে ধারণাই করতে পারেননি, বাংলাদেশের এ ধরনের উত্তরণ ঘটতে পারে। কিন্তু সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যে প্রেক্ষিত পরিকল্পনা এবং পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়েছি বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। সে সময় অনেক সমালোচনা সহ্য করতে হলেও আমার বিশ্বাস ছিল, সরকারের এ পরিকল্পিত প্রচেষ্টার সুফল বাংলাদেশ পাবে।’

তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, যত সমালোচনাই হোক, বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্যই আমরা কাজ করে যাচ্ছি এবং কাজ করে যাব। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাব। বাংলাদেশের এই গতি যেন আর কেউ রোধ করতে না পারে। নানারকম চক্রান্ত, ষড়যন্ত্র থাকবে এবং সেগুলো মাথায় নিয়েই আমাদের চলতে হবে। আজকে আমরা উন্নয়নশীল দেশের যে মর্যাদা পেয়েছি সেটা বাংলাদেশের জনগণেরই অবদান। বার বার ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার মাধ্যমে সেবা করার সুযোগ দেওয়ায় বাংলাদেশের জনগণের কৃতজ্ঞতা জানাই।’

সরকার প্রধান বলেন, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে গ্রাজুয়েশন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়নের জন্য এটি সম্ভব হয়েছে। জনগণের সার্বিক উন্নয়নে আমরা প্রচেষ্টা চালিয়েছি। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে এই অর্জন আমাদের জন্য অনেক গৌরবের। এটি বাঙালি জাতির বিরল সম্মান ও অনন্য অর্জন। সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে পরিকল্পিতভাবে এগিয়েছি বলেই আমরা অর্জন করতে পেরেছি। অনেক সমালোচনার সম্মুখীন হতে হয়েছে। সমালোচনায় আমরা কান না দিয়ে অভিষ্ঠ লক্ষ্য নিয়ে এগিয়েছি।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন। এ সময় সৌদি আরবের পরিবহনমন্ত্রী সালেহ নাসের আল জাসেরের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল সংসদ অধিবেশন পরিদর্শনে আসে এবং অধিবেশন প্রত্যক্ষ করে।