প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

২০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ প্রাথমিক ঘাটতিতে ব্রাজিল

শেয়ার বিজ ডেস্ক: চলতি বছরের নভেম্বরে ব্রাজিলে প্রাথমিক ঘাটতি ১১ দশমিক সাত বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। নভেম্বর মাসের ঘাটতি হিসাবে ২০ বছরের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ। সোমবার দেশটির ট্রেজারি সেক্রেটারি এ তথ্য জানান। খবর রয়টার্স।

আগের মাসের তুলনায় নভেম্বরে ব্রাজিলের প্রাথমিক ঘাটতি চিত্রে ছিল অনেক পার্থক্য। অক্টোবরে বাজেটে প্রাথমিক উদ্বৃত্ত ছিল ১২ দশমিক ৪৭ বিলিয়ন ডলার। চলতি বছরের প্রথম ১১ মাসে দেশটির প্রাথমিক ঘাটতি ছিল ২৮ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার। এটিও ২০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

ব্রাজিলে চলমান অর্থনৈতিক মন্দায় কর আদায় কমে যাওয়া এ নেতিবাচক চিত্রের অন্যতম কারণ বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। দুই বছর ধরে ব্রাজিলে অর্থনৈতিক মন্দা চলছে।

আগের এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে আগের প্রান্তিকের চেয়ে ব্রাজিলের মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) কমেছে দশমিক আট শতাংশ। গত বছরের একই সময়ের চেয়ে জিডিপি কমেছে ২ দশমিক ৯ শতাংশ। এ নিয়ে দেশটিতে টানা সাত প্রান্তিকে দেশটির জিডিপি কমলো।

চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে ব্রাজিলের অর্থনীতি আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৪ দশমিক ৪ শতাংশ সংকুচিত হয়েছে। ওই সময়ে কৃষি খাতে প্রবৃদ্ধি কমেছে ৫ দশমিক ৬ শতাংশ, শিল্প খাতে কমেছে ৫ দশমিক ৪ শতাংশ ও সেবা খাতে কমেছে ১৩ দশমিক ৫ শতাংশ।

এছাড়া তৃতীয় প্রান্তিকে আগের প্রান্তিকের তুলনায় ব্রাজিলে বিনিয়োগ কমেছে ৩ দশমিক ১ শতাংশ এবং আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কমেছে ১৩ দশমিক ৫ শতাংশ।  ব্রাজিলের মাসিক কর রাজস্ব কমে ছয় বছরের মধ্যে সর্বনিম্নে চলে এসেছে। জুলাই মাসে দেশটির মোট কর রাজস্ব হয়েছে ৩৩ দশমিক ৩৬ বিলিয়ন ডলার। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় যা ৫ দশমিক ৮ শতাংশ কম। ২০১০ সালের পর দেশটির মাসিক রাজস্ব এটাই সবচেয়ে কম। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত দেশটির মোট কর রাজস্ব আদায় হয়েছে ২২৫ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এ পরিমাণ ৭ দশমিক ১ শতাংশ কম, যা গত ছয় বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। অর্থাৎ ডিসেম্বরেই প্রায় ২২ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার ঘাটতির সম্ভাবনা রয়েছে। যদি এটি নিশ্চিত হয়, তাহলে টানা তিন বছর ব্রাজিলে প্রাথমিক ঘাটতি দেখা দেবে। এছাড়া ২০১৭ অর্থবছরে ব্রাজিলে ঘাটতি ৪২ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার ছাড়াবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।