সারা বাংলা

২১ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে ফুলের দোকানে ভিড়

তৈয়ব আলী সরকার, নীলফামারী: জেলা শহরের ফুলের দোকানগুলোতে পহেলা ফাল্গুনের ব্যস্ততা কাটার সপ্তাহখানিক পর ২১ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে আবারও উপচেপড়া ভিড় জমে গেছে। সারা দেশের মতো এখানকার শহীদ মিনারের বেদি ফুলে ফুলে ভরে উঠবে। সবাই ফুল কিনতে শুরু করেছে।

গতকাল সকালে ফুল কিনতে আসা জেলা শহরের বাবুপাড়ার সমাজকর্মী সেলিনা আকতার বলেন, আগামীকাল অমর একুশে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। নারী সাংসদের পক্ষে শহীদদের বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে দোকানে এসেছি ফুল কিনতে। নিউ বাবুপাড়ার পান দোকানদার মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের স্মরণে আগামীকাল ২১ ফেব্রুয়ারি যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালিত হবে। তাই আমার সংগঠনের পক্ষে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে ফুল কিনতে এসেছি। তিনি বলেন, দিনটি জাতির জন্য গৌরবময়।

জেলা শহরের পৌর সুপার মার্কেটের চঞ্চল সাজঘর ‘ফুলবিতান’ দোকানের মালিক রফিকুল ইসলাম বাবু বলেন, আগামীকাল মহান মাতৃভাষা দিবসকে ঘিরে আজ সারাদিন বিভিন্ন বয়সের ছেলেমেয়েরা ফুল কিনতে আসছে। তিনি বলেন, ২১ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে দোকানে হরেক রকমের নতুন জাতের ফুল সংগ্রহ করেছি। ক্রেতাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে প্রতিপিচ গোলাপ ৫০ টাকা, জারবেরা ৪০-৫০, গাদা ১০, রজনীগন্ধা ১০, সাদা গোলাপ ৪০, হাই গোলাপ ৫০, ঝিপসি ৫, চন্দ্র মল্লিকা ১০, জিনিয়া ১০, দোপাটি ১০, সিলভিয়া ১০, রক্তজবা ৮০, চায়না টগর ২০ ও কসমস ১০ টাকা হারে বিক্রি হচ্ছে।

একই এলাকার ‘ফুল ঘরের’ দোকানদার মো. সোয়েল মিয়া বলেন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আগে থেকেই দোকানে ফুলের সরবারহ বাড়িয়েছি। আজ সকাল থেকে সরকারি-বেসরকারি ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফুলের তোরা ও মালা তৈরির অর্ডার দিয়ে যাচ্ছে। এবার বেচাকেনা গত বছরের চেয়ে অনেক বেশি। এ যাবত প্রায় লক্ষাধিক টাকার অর্ডার পেয়েছি। আশা করি আগামী দুদিনে আরও ৫০-৬০ হাজার টাকার ফুল বেচাকেনা হবে। এবার জেলা প্রশাসনের জন্য পুষ্পস্তবকটি গত দুদিন ধরে তৈরি করছি। দামও পেয়েছি ভালোই।

অপরদিকে, হাইব্রিট গোলাপের মধ্যে তাজমহল গোলাপ ৬০, রানী গোলাপ ৫৫, বিশ্ব সুন্দুরী গোলাপ ৭০ টাকা। প্রকার ভেদে ইরানী গোলাপ ২৫ টাকা থেকে ১০০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। এছাড়াও দেশি জাতের গোলাপ প্রতি পিচ ১০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে ওই দোকানের কর্মচারী হবিবর রহমান বলেন, গত কয়েকদিন আগে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও পহেলা ফাল্গ–নের ফুল কেনার ধুম শেষ হয়ে গেল। আর ২১ ফেব্রুযারিতে আরও কাজের চাপ বেড়েছে। রাতদিন কাজ করেও সামাল দেওয়া যাচ্ছে না।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..