প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

২১ লাখ গাড়ি প্রত্যাহার করবে হোন্ডা

 

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আগুনের ঝুঁকির কারণে ব্যাটারি সেন্সর প্রতিস্থাপন করতে বিশ্বব্যাপী দুই দশমিক এক মিলিয়ন বা ২১ লাখ গাড়ি প্রত্যাহার করবে জাপানের গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হোন্ডা মোটর কোম্পানি। শুক্রবার এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানটি এ পরিকল্পনার কথা জানান। খবর রয়টার্স।

প্রতিষ্ঠানটির একজন মুখপাত্র ক্রিস মার্টিন জানান, ২০১৩ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে তৈরি যুক্তরাষ্ট্রের এক দশমিক ১৫ মিলিয়ন অ্যাকর্ড সেডান গাড়ি এবং অন্য দেশগুলো থেকে ১২ ভোল্ট ব্যাটারি সেন্সরের এক মিলিয়ন গাড়ি প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।

হোন্ডা মোটর জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে ইঞ্জিনে আগুন লাগার চারটি ঘটনার অভিয়োগ তাদের কাছে এসেছে। এ ছাড়া কানাডা থেকেও একটি অভিয়োগ এসেছে। তবে এসব ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে ওই সংক্রান্ত প্রায় তিন হাজার ৯৭২টি ওয়ারেন্টি অভিযোগ উঠেছে।

বায়ুর অনুপ্রবেশের বিরুদ্ধে সম্ভবত ব্যাটারি সেন্সর পর্যাপ্তভাবে সিল হতে পারে না বলে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

২০১৫ সালে প্রথম কানাডা থেকে এ ধরনের অভিযোগ আসে। এরপর যখন চীন থেকেও একই ধরনের অভিযোগ আসে তখন থেকেই প্রতিষ্ঠানটি প্রত্যাহারের বিষয়ে ভাবতে থাকে। পরবর্তীতে চীনের দুর্ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে প্রত্যাহারের এ সিদ্ধান্ত নেয় হোন্ডা। গত বছরের জুনে হোন্ডা নতুন নকশার একটি সেন্সর ব্যাটারির সঙ্গেও পরিচয় করিয়ে দেয়।

হোন্ডার গাড়ি প্রত্যাহারের ঘটনা এটিই প্রথম নয়। এর আগে একাধিকবার এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে।

ত্রুটিপূর্ণ তাকাতা এয়ারব্যাগের কারণে উত্তর আমেরিকা থেকে গত বছর ২২ লাখ তিন হাজার গাড়ি প্রত্যাহার করে হোন্ডা মোটর কোম্পানি। ২০০৫-২০১৬ মডেলের হোন্ডা ও অ্যাকিউরা গাড়িগুলো থেকে তাকাতার তৈরি ত্রুটিযুক্ত পিএসডিআই-৫ এয়ারব্যাগ প্রতিস্থাপন করাই ওই প্রত্যাহারের মূল উদ্দেশ্য ছিল। এ ছাড়া বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ প্রতিস্থাপনের জন্য ২০০৮-২০১০ মডেলের তিন লাখ ৪১ হাজার অ্যাকর্ড সেডান গাড়িও প্রত্যাহার করে হোন্ডা। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছিল, জলীয় বাষ্প এসব ইউনিটের কার্যক্রমে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছে।