প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

৩০০ কোটি টাকার গাড়ি বোল্টের!

ক্রীড়া ডেস্ক: ক্যারিয়ারের রঙিন সময়টা পেছনে ফেলে শিগগিরই ‘বিদায়’ বলবেন উসাইন বোল্ট। কিন্তু বিদায় খুব কাছাকাছি এসে গেলেও আগের মতোই বিলাস জীবন কাটাচ্ছেন তিনি। সেটা শুধু পোশাক আর লাইফস্টাইলেই নয়, সব কিছুতেই থাকে অর্থের ঝনঝনানি। এবার কিনলেন দামি এক গাড়ি। বছরের শেষ প্রান্তে সেই বিলাসবহুল গাড়ি নিয়ে শিরোনামে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম এ মানব।

ক্রিসমাস উপলক্ষে জ্যামাইকান এ কিংবদন্তি স্প্রিন্টার কিনলেন সবুজ রঙের এক গাড়ি। গাড়ির সিটগুলো জ্যামাইকার পতাকার রঙে রঙিন। জানা গেছে, গাড়িটি কিনতে বোল্টের অ্যাকাউন্ট থেকে ব্যয় হয়েছে চার কোটি ২০ লাখ ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৩৩২ কোটি ৪১ লাখ ৯০০ টাকা। বিস্ময়কর তো বটেই! তবে বোল্ট এমনই।

বলা হয় অলিম্পিক ইতিহাসে তিনিই সর্বকালের সেরা অ্যাথলেট। রেকর্ড তার হয়ে কথা বলছে। পর পর তিন অলিম্পিক গেমসে ১০০ মিটার স্প্রিন্টের স্বর্ণপদক তার দখলে। সর্বশেষ রিও অলিম্পিকে ১০০ ও ২০০ মিটারের স্প্রিন্ট এবং ৪০০ মিটারের রিলেতে সোনার পদক জিতেছেন ৩০ বছর বয়সী বোল্ট। ইতিহাসে প্রথম ক্রীড়াবিদ হিসেবে এমন রেকর্ড গড়েছেন এ স্প্রিন্টার।

এক গাড়িতেই যিনি এমন অর্থ ব্যয় করেন তার আয়ও আকাশ ছোঁয়া! বলা হয় প্রতি সেকেন্ডেই বোল্টের আয় ৫৫ কোটি টাকা! ভুল শোনেননি, ৫৫ কোটিই! এবারের রিও অলিম্পিকে ১০০ মিটার জয়ের পর এক দিনের জন্য এমনই আয় হয়েছিল তার।

তখন প্রতি সেকেন্ড হিসেবে তার আয় ৫৫ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড! নামি ব্র্যান্ড পুমা, নিশান, হাবলট, ভিসা, ভার্জিন মিডিয়া, জাপানের অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ, অস্ট্রেলীয় টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি অপ্টাস থেকে এ অঙ্কের অর্থ পেয়ে থাকেন বোল্ট।