খবর

৩৩ জেলায় পানিবাহিত রোগে মৃত্যু ১৯৮

শেয়ার বিজ ডেস্ক: দেশের ৩৩ জেলার ২৬৯ উপজেলার মধ্যে দুর্গত ১৬৩টি উপজেলার এক হাজার ৭৮টি ইউনিয়নের ৫৫ লাখ মানুষ বন্যাজনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। চলতি মৌসুমে দুই দফা বন্যার শিকার দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্ব ও মধ্যাঞ্চলের নিন্মঞ্চল প্লাবিত হয়।

প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও বন্যার কারণে দেশের বিভিন্ন এলাকায় পানি কমে আসার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। চলতি বছরের ৩০ জুন থেকে ১১ আগস্ট পর্যন্ত ৩৩ জেলার বিভিন্ন এলাকায় ডায়রিয়া, আরটিআই, চর্মরোগ, চোখের প্রদাহ, সাপে কাটা, পানিতে ডুবে, বন্যাজনিত কারণে যে কোনো আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ও শ্বাসনালীর প্রদাহসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ হাজার ৬০১ জন। এছাড়া পানিতে ডুবে, ডায়রিয়ায়, সাপের কামড়ে ও বজ্রপাতে ১৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তের মুখপাত্র ডা. আয়শা আক্তার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুসারে, দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্ব ও মধ্যাঞ্চলের ৩৩ জেলার নিন্মাঞ্চলে প্রায় ৫৫ লাখ মানুষ এখনও পানিবন্দি আছেন। বন্যাকবলিত জেলাগুলোর মধ্যে ডায়রিয়া, আরটিআই, চর্মরোগ, চোখের প্রদাহ, সাপে কাটা, পানিতে ডুবে, বন্যাজনিত কারণে যে কোনো আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ও শ্বাসনালীর প্রদাহসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন মাদারীপুরে সবচেয়ে বেশি ১৫ হাজার ৪১৫ জন। এছাড়া টাঙ্গাইলে পাঁচ হাজার ৪৭ জন, নেত্রকোনার এক হাজার ৮২৩ জন, সিরাজগঞ্জের এক হাজার ৭৫৩ জন, ঢাকায় এক হাজার ৬২৪ জন, নেত্রকোনায় এক হাজার ৪৪৮ জন ও কুড়িগ্রামে এক হাজার ২৫৮ জন, মানিকগঞ্জে এক হাজার ২০৬ জন রয়েছেন। 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..