বিশ্ব বাণিজ্য

৩৫ হাজার কর্মী ছাঁটাই করছে এইচএসবিসি

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ব্যয় কমানোর লক্ষ্যে প্রায় ৩৫ হাজার কর্মী ছাঁটাই করতে যাচ্ছে ব্রিটেনভিত্তিক দ্য হংকং অ্যান্ড সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশন (এইচএসবিসি)। ২০১৯ সালে প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কমেছে ৩৩ শতাংশ। ব্যাংকটি বলছে, আগামী ২০২২ সালের মধ্যে ব্যাংক পুনর্গঠনের জন্য ৪৫০ কোটি ডলার ব্যয় কমানোর লক্ষ্যে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। খবর: বিবিসি।

ব্যাংকটির অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নোয়েল কুইন বলেন, বর্তমানে এইচএসবিসির কর্মীসংখ্যা দুই লাখ ৩৫ হাজার। আগামী তিন বছরের মধ্যে তা দুই লাখে নামিয়ে আনা হবে। ব্যাংকটি গত বছর কর পরিশোধ ছাড়া মুনাফা করেছে এক হাজার ৩৩৫ কোটি ডলার।

ব্যাংকটি জানিয়েছে, মূলত ইউরোপে বিনিয়োগ আর বাণিজ্যিক কার্যক্রম প্রত্যাশিত না হওয়ায় ৭৩০ কোটি ডলার ক্ষতির মুখে পড়েছে তারা। তবে ৩৫ হাজার কর্মীকে ছাঁটাইয়ের ঘটনাটি আশঙ্কার তুলনায় বেশি, যা ব্যাংকটির মোট কর্মীর ১৫ শতাংশ। বিশ্লেষকদের আশঙ্কা ছিল, এবার হয়তো আনুমানিক ১০ হাজার কর্মী ছাঁটাই করা হবে।

এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপের অর্ধশতাধিক দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে দ্য হংকং সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশন। শুধু ব্রিটেনেই এর কর্মিসংখ্যা ৪০ হাজারের বেশি। এইচএসবিসির এ ছাঁটাইয়ের কবলে পড়বেন ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রে তাদের ব্যাংকিং-বিনিয়োগ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত অনেক কর্মী।

লন্ডন ইনস্টিটিউট অব ব্যাংকিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সের সাবেক ডিন পিটার হান বলেন, ‘আমার মনে হয়, বিনিয়োগ ব্যাংকিংয়ে সাফল্যের সম্ভাবনা সম্পর্কে খুব আশাবাদী ছিল তারা। বাস্তবতা হলো, বিশ্বে বিনিয়োগের সবচেয়ে বড় বাজার যুক্তরাষ্ট্র এবং সেখানে আপনি বৃহৎ অংশীদার না হতে পারলে সাফল্য সম্ভব নয়। তারা সেটা পারেনি।’

যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে দীর্ঘদিনের বাণিজ্যযুদ্ধে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর প্রভাব পড়েছে বহুজাতিক ব্যাংকগুলোর ওপর। এর পাশাপাশি ব্রেক্সিট অনিশ্চয়তায় ব্রিটেনসহ গোটা ইউরোপেই রাজনৈতিক টানাপড়েনের জেরেও শিল্প-ব্যবসায় নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এতে ব্যাংকের মুনাফায় নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এ পরিস্থিতি থেকে ঘুরে দাঁড়াতেই এইচএসবিসি কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে হাঁটতে চলেছে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ব্যাংকটির অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নোয়েল কুইন এমন উদ্যোগ নিয়েছেন।

আগামী বছরগুলোতে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালন ব্যায় ব্যাপকভাবে কমানোর পরিকল্পনা করেছেন নোয়েল। ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনায় প্রধানত উচ্চ বেতনের কর্মকর্তারাই আছেন বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। গত আগস্টে হঠাৎ করে জন ফ্লিন্ট সিইওর পদ থেকে সরে দাঁড়ালে অন্তর্বর্তীকালীন দায়িত্ব নেন নোয়েল।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..