বিশ্ব বাণিজ্য

৪০টি বোয়িং উড়োজাহাজ কিনছে এমিরেটস  

শেয়ার বিজ ডেস্ক: উড়োজাহাজ নির্মাতা মার্কিন প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের কাছ থেকে এক হাজার ৫০০ কোটি ডলারে ৪০টি বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনারস উড়োজাহাজ কিনছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উড়োজাহাজ সংস্থা এমিরেটস এয়ারলাইনস। এ উড়োজাহাজগুলো ২০২০ সাল থেকে সরবরাহ করা শুরু হবে। খবর বিবিসি।

দুবাইয়ে শুরু হওয়া পাঁচ দিনের আকাশযান ও প্রযুক্তি প্রদর্শনী দুবাই এয়ারশো’র প্রথম দিনেই বড় বিক্রির ঘোষণা দিল বোয়িং। এয়ারলাইনটির চেয়ারম্যান শেখ আহমেদ বিন সাইদ আল-মাকতুম বলেন, এয়ারবাস এ৩৫০ উড়োজাহাজকে পেছনে ফেলে বোয়িংয়ের এই উড়োজাহাজ বাছাই করা হয়েছে। এর আগে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ৩৮০ সুপারজাম্বো উড়োজাহাজের জন্য বড় একটি ক্রয়াদেশের ঘোষণা দেওয়ার আশা প্রকাশ করেছিলেন।

সবচেয়ে বড় যাত্রীবাহী আকাশযান এ৩৮০-এর জন্য আরও বেশি ক্রয়াদেশ পাওয়াটা এয়ারবাসের জন্য খুব দরকারি ছিল বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এই উড়োজাহাজ নির্মাতা ফরাসি-জার্মান প্রতিষ্ঠানটি আর এমিরেটস চলতি সপ্তাহের এ অনুষ্ঠানে বড় কোনো ঘোষণা দিতে চ‚ড়ান্ত আলোচনায় পৌঁছে গিয়েছিল।

মধ্যপ্রাচ্যে সবচেয়ে বড় এয়ারলাইনস প্রতিষ্ঠান এমিরেটস ইতোমধ্যে বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজের সবচেয়ে বড় গ্রাহক। এ এয়ারুলাইনসের অধীনে বর্তমানে ১৬৫টি বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজ সেবা দিচ্ছে, ক্রয়াদেশ দেওয়া আছে আরও ১৬৪টি উড়োজাহাজের। ক্রয়াদেশ দেওয়া কিছু উড়োজাহাজ বদলে নতুন আনা ৭৮৭ উড়োজাহাজের ক্রয়াদেশ দেওয়া হবে। আর বাকিগুলো এয়ারলাইনসটির নেটওয়ার্ক বাড়াতে ব্যবহার করা হবে।

এই চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছে বোয়িং। প্রতিষ্ঠানটির এভিয়েশন বিভাগের প্রধান কেভিন ম্যাকঅ্যালিস্টার বলেন, এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রে আরও অনেক কর্মসংস্থান হবে।

রোববার বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজের ক্রয়াদেশ দিয়েছে আজারবাইজান এয়ারলাইনসও। তারা পাঁচটি ড্রিমলাইনার আর দুটি মালবাহী বোয়িং উড়োজাহাজের ক্রয়াদেশ দিয়েছে। সব মিলিয়ে এই চুক্তির মূল্য ২০০ কোটি ডলার হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সামরিক হার্ডওয়্যার আর অত্যাধুনিক যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ প্রদর্শনকে সামনে রেখে এয়ারবাস ও বোয়িংয়ের প্রতিদ্বিদ্বতা প্রচলিত ধারা বজায় রেখে এবারও খবরের শিরোনাম হয়েছে। চলতি বছর এখন পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করা প্লেনের অর্ডারগুলোর প্রায় ৬৫ শতাংশই নিজেদের দখলে নিয়েছে বোয়িং।

 

 

 

 

 

 

 

সর্বশেষ..