প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

 

কাঁকরোলের পুষ্টিগুণ
আমাদের দেশের জনপ্রিয় একটি সবজি কাঁকরোল। কাঁঠালের মতো দেখতে; তবে আকারে ছোট। ভাজি, ভর্তা ও তরকারি হিসেবে খাওয়া যায়। অনেক পুষ্টিকর সবজি এই কাঁকরোল।

পুষ্টিগুণ
এতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন, মিনারেল, ফাইবার, কার্বোহাইড্রেট, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, লুটেইন, ক্যালসিয়াম, লৌহ, ফসফরাস, ক্যারোটিন, আমিষ, ভিটামিন বি, শ্বেতসার, জেনান্থিন, এনজাইম প্রভৃতি রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, কাঁকরোলে টমেটোর চেয়ে ৭০ গুণ বেশি লাইকোপিন, গাজরের চেয়ে ২০ গুণ বেশি বিটা ক্যারোটিন, কমলার চেয়ে ৪০ গুণ বেশি ভিটামিন সি ও ভুট্টার চেয়ে ৪০ গুণ বেশি জিয়াজেন্থিন থাকে। প্রচুর আয়রনের পাশাপাশি ভিটামিন সি ও ফলিক অ্যাসিড রয়েছে।

উপকারিতা

যাদের কোলেস্টেরলের মাত্রা বেশি বা উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল রয়েছে, তাদের জন্য বিশেষ উপকারী কাঁকরোল। এটি কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে

এর ভিটামিন ও বিটাক্যারোটিন চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সহায়তা করে। চোখের ছানি প্রতিরোধ করে

ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে

এর আয়রন অ্যানেমিয়া প্রতিহত করে

সেলেনিয়াম, মিনারেল ও ভিটামিন নার্ভাস সিস্টেমের ওপর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, যা বিষন্নতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে

উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে এতে,

কার্ডিওভাসকুুলার রোগ প্রতিরোধে
সাহায্য করে

কোষ গঠন ও নতুন কোষ তৈরিতে কাঁকরোল সাহায্য করে। এর ভিটামিন বি ও সি স্নায়বিক সমস্যা দূর করে

শ্বাসকষ্ট হলে ২৫০ থেকে ৫০০ মিলিগ্রাম কাঁকরোলের শেকড় বাটার সঙ্গে এক চা চামচ আদার রস ও এক টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে খান উপকার পাবেন

ফাইবারসমৃদ্ধ হওয়ায় কাঁকরোল হজমে সাহায্য করে

কাশি হলে কাঁকরোল বাটা কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে দিনে তিনবার পান করুন। কাশি কমে যাবে

কাঁকরোলের বিটা ক্যারোটিন, আলফা ক্যারোটিন ও লিউটেইন ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না। ত্বককে করে মসৃণ

কাঁকরোল পাতার রস কিছু সময় সেদ্ধ করে ঠাণ্ডা করে পান করুন। জ্বর কমে যাবে।

শিপন আহমেদ