সারা বাংলা

ঠাকুরগাঁওয়ের ভেলাজান নদীপারা গ্রামের শতা‌ধিক পরিবার কোয়ারেন্টাইনে

প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও
ঠাকুরগাঁওয়ে একই পরিবারের পাঁচ জন জ্বর, সর্দি ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্তদেরকে হাসপাতালে পাঠানোর পরদিন তাদের গ্রামের ১শ পরিবারকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন এটি নিশ্চিত করেন।

শনিবার সদর উপজেলার চিলারং ইউনিয়নের ভেলাজান নদীপাড়া গ্রামের রুহুল আমিন ও তার স্ত্রী-সন্তানসহ একই পরিবারের পাঁচ জন জ্বর ও শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় আক্রান্ত হলে তাদের প্রথমে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আইইডিসিআরের পরামর্শে ওই দিন সন্ধ্যায় তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সেখানে ৫ জনের নমুনা সংগ্রহের পর রোববার বিকালে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে আনা হয় । এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঠাকুরগাঁও সিভিল সার্জন মাহফুজার রহমান সরকার।

আজ সোমবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক নাদিরুল আজিজ চপলের নেতৃত্বে একদল চিকিৎসক আইসোলেশনে থাকা রুহুলসহ ওই পাঁচ জনের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন। সিনিয়র কনসালন্টেন ডা. তোজ্জামেল হোসেন বলেন তারা এখন সুস্থ রয়েছেন ।
ডা. নাদিরুল আজিজ চপল বলেন, ওই পরিবারের পাঁচজন সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কিনা তা জানার জন্য রক্তের নমুনা ঢাকায় পাঠিয়েছে রমেক হাসপাতাল।
ইউএনও আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন ওই আক্রান্তদের স্বজন ও আশপাশের একশ পরিবারের মাঝে সাত দিনের খাবার পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

চিলারং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বলেন, একই পরিবারের পাঁচ সদস্য জ্বর-শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ওই গ্রামের একশ পরিবারকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন ইউএনও। গ্রামের মানুষকে সর্তক করতে লাল পতাকা উড়ানো হয়েছে ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..